সর্বশেষ সংবাদ :

মধ্যরাতে প্রাইভেট কারে তুলে নিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ, দুজন আটক

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এক তরুণীকে প্রাইভেটকারে তুলে ধর্ষণচেষ্টার ঘটনায় মাহমুদুল হক রনি নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার মধ্যরাতে কলেজগেট চেকপোস্টের কাছে এ ঘটনা ঘটে। রনি ও তার গাড়িচালককে প্রাইভেটকার থেকে টেনেহিঁচড়ে বের করে গণধোলাই দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। একপর্যায়ে চালক পালিয়ে গেলেও ধনীর দুলাল রনিকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে পড়েছে। গতকাল সকাল থেকেই এ নিয়ে চলছে তোলপাড়। এদিকে ওই ঘটনার ভিডিও ধারণ এবং ফেসবুকে শেয়ার করে রাফি আহমেদ সরদার নামে এক যুবক। নিমিষেই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে পড়ে। ভিডিওটি শেয়ার করার পর থেকে রাফিকে ফেসবুক ও মোবাইল ফোনে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় আতঙ্কিত রাফি।

গতকাল দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণেশ গোপাল বিশ্বাস জানান, শনিবার রাত আড়াইটার দিকে কলেজগেট চেকপোস্টে রনিকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত দুই তরুণীর খোঁজ পাওয়া গেছে। রনি ও ওই তরুণীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। কিন্তু দুই তরুণী ভিন্ন ভিন্ন তথ্য দিচ্ছে। তবে এদের একজন বিবাহিত। তার স্বামী হেরোইন মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। আটক রনি থানা হেফাজতে রয়েছে, তার গাড়িটিও জব্দ করা হয়েছে। তাদের অভিযোগ অনুযায়ী নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে রনির বিরুদ্ধে একটি মামলা করা হয়েছে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে রনি জানিয়েছে, সংসদ ভবনের সামনে থেকে টাকার বিনিময়ে দুই নারীকে প্রাইভেটকারে তোলা হয়। কিছুদূর গিয়ে একজনকে নামিয়ে দিতে গেলে তিনি চিৎকার করতে থাকেন। তখন ওই এলাকায় যানজট ছিল। পরে আশপাশের লোকজন না বুঝে তাকে ও তার চালককে গণধোলাই দিয়েছে। তার বাবা আইনজীবী এবং বড় ব্যবসায়ী। রনির বড় ভাই ব্যারিস্টার। স্থানীয় জনতা এবং ভিডিও ফুটেজ সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর কলেজগেট সিগন্যালে দাঁড়িয়ে থাকা প্রাইভেটকারের (ঢাকা মেট্রো-গ ২৯-৫৪১৪) ভিতরে এক তরুণীর সঙ্গে ধস্তাধস্তি করছিলেন রনি। ওই সময় আরেকটি গাড়িতে ছিলেন রাফি নামে এক যুবক। তিনি মনে করছিলেন গাড়ি নিয়ে পালানোর চেষ্টা চলছে। এরপর রাফিসহ সেখানে থাকা আরও কয়েকজন এগিয়ে গিয়ে রনির প্রাইভেটকারটি আটকে ফেলেন। তখন তারা দেখতে পান গাড়ির পেছনের আসনে রনি এক তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা করছে। পরে জনতা গাড়ির ভিতর থেকে এক তরুণী, রনি ও তার গাড়ি চালককে বের করে আনেন।

ভিডিওটি ফেসবুকে শেয়ারকারী রাফি আহমেদ সরদার জানান, ঘটনাটি আমার চোখের সামনে। তাই মোবাইলে ভিডিওটি ধারণ করি। পরে তা ফেসবুকে শেয়ার করা হয়। এরপরই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে পড়ে। ফেসবুকে ভিডিওটি শেয়ার করার কারণে ফেসবুক ও মোবাইল ফোনে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। জানা গেছে, রনি বিবাহিত এবং দুই সন্তানের জনক। পেশায় ব্যবসায়ী রনি নিজেকে যুবলীগ নেতাও পরিচয় দেন। রনি মাদকসেবী। ঘটনার রাতে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় যাওয়ার জন্য ধানমন্ডির ঝিগাতলার বাসা থেকে নিজ গাড়িতে বের হন। গাড়ির মধ্যেই মাদক সেবন করেন। স্থানীয় জনতার হাতে ধরা পড়ার পর তার মুখ থেকে মদের গন্ধ বের হচ্ছিল বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

Source: BD Pratidin

log

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

shared on wplocker.com